ফেসবুকে বিতর্কিত স্ট্যাটাস, বিসিবির কাছে ক্ষমা চেয়েছেন তানজিম

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিতর্কিত স্ট্যাটাস দেওয়ার ব্যাপারে ক্ষমা চেয়েছেন জাতীয় দলের পেসার তানজিম হাসান। বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান জালাল ইউনুস আজ সংবাদমাধ্যমকে এ কথা জানান।

মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের মিডিয়া প্লাজায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে জালাল ইউনুস বলেন, ‘আমাদের ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগ থেকে তানজিমের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা হয়েছে, ওর সঙ্গে আমরা কথা বলেছি।

মিডিয়া বিভাগ থেকেও যোগাযোগ করা হয়েছে। তাকে আমরা বিষয়টি অবগত করেছি। যেসব পোস্ট তার ফেসবুকে এসেছে…তার বক্তব্য হচ্ছে, কাউকে আঘাত করার জন্য এই পোস্ট দেওয়া নয়। সে যে পোস্ট দিয়েছে, তা নিজে থেকে দিয়েছে।

কাউকে উদ্দেশ করে, কিছু টার্গেট করে এই পোস্ট দেওয়া হয়নি। এটা দেওয়ার কারণে যদি কারও আঘাত লেগে থাকে, তাহলে সে সেটার জন্য সরি (দুঃখিত)।’

তানজিমের ফেসবুক পেজের বেশ কিছু পুরোনো স্ট্যাটাস নিয়ে কয়েক দিন ধরেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সমালোচনা হচ্ছে। এর মধ্যে কর্মজীবী নারীদের হেয় করে দেওয়া একটি স্ট্যাটাসই বেশি সমালোচিত হচ্ছে।

এ ব্যাপারে জালাল ইউনুস জানান, ‘সে (তানজিম) মনে করে…একটা কথা এসেছে নারীর ব্যাপারে, সে বলেছে এটার দায়দায়িত্ব সে নিচ্ছে। এটা পুরোটাই সে ডিনাই (অস্বীকার) করেছে। সে বলেছে, তার মা একজন নারী।

সুতরাং সে কোনো দিনই নারীবিদ্বেষী হতে পারে না। এটাই হচ্ছে তার বক্তব্য। আমরা তাকে বলেছি, ভবিষ্যতে সতর্ক থাকার জন্য। ভবিষ্যতে যদি কোনো পোস্ট দিয়ে থাকে, সেটা ক্রিকেট বোর্ড থেকে পর্যবেক্ষণ করা হবে।’

Bangladesh Pacer Tanzim Hasan Sakib Slammed For Misogynist Remarks

তানজিম ভুল করেছেন, সত্যিকার অর্থে এ উপলব্ধি তাঁর হয়েছে কি না, এমন প্রশ্নের উত্তরে জালাল ইউনুস বলেছেন, ‘ভুল করেছে। সেটার জন্য সে বলেছে, “আমি দুঃখিত”। যে পোস্টগুলো দিয়েছে, আমরা তার সঙ্গে কথা বলেছি।

যেন ভবিষ্যতে এ ধরনের কোনো পোস্ট না দেওয়া হয়। এ ধরনের পোস্ট দেওয়া থেকে বিরত থাকবে। সে একটা বড় কথা বলেছে, সে নারীবিদ্বেষী নয়। তার কথা, “আমার মা-ই তো একজন নারী। আমি কীভাবে নারীবিদ্বেষী হতে পারি।”’

তানজিম কোন ধ্যানধারণার অনুসারী, সে প্রশ্নও উঠেছে। বিসিবির কাছে এ বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ কি না, এমন এক প্রশ্নের উত্তরে জালাল ইউনুস বলেছেন, ‘অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ। সেদিকে আমাদের নজর আছে। আমরা পর্যবেক্ষণ করব তাকে।

অবশ্যই পর্যবেক্ষণ করব। এই মুহূর্তে সে যেটা বলেছে, তার পরিবারও খুবই শঙ্কিত এ ব্যাপারে। তারাও এ ধরনের একটা পরিস্থিতি হবে, আশা করেনি। তারাও দুঃখ প্রকাশ করেছে। যেহেতু সামনে বিশ্বকাপ আছে, একটা তরুণ ছেলে এবং বয়স কম আপনারা জানেন।

তাকে সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে। ভবিষ্যতে যেন এ ধরনের কোনো পোস্ট না দেওয়া হয়। আমরা খেয়াল করি, দেখি, পর্যবেক্ষণ করি। যদি কিছু থাকে, তাহলে অবশ্যই আমরা তার বিরুদ্ধে অ্যাকশন নেব।’

তরুণ এই ক্রিকেটার কার সঙ্গে মেশেন, সেটাও বিসিবি নজরে রাখবে বলে জানান ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান, ‘সে কারও সঙ্গে মেশে না। সে যা (পোস্ট) দিয়েছে, নিজে থেকে দিয়েছে। যদি ভবিষ্যতে কোনো কার্যক্রম থাকে, আমরা বলেছি আমরা পর্যবেক্ষণ করব।’

নিজের ফেসবুক পোস্টের জন্য তানজিমের প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়া উচিত, এ দাবিও উঠেছে সংবাদ সম্মেলনে। জালাল ইউনুস এ ব্যাপারে বলেছেন, ‘ক্ষমা সে আমাদের কাছে চেয়েছে। প্রকাশ্যের কথা বলা হয়নি। ক্ষমা আমাদের কাছে চেয়েছে।

’ প্রয়োজনে মনোবীদের কাছে সহায়তা নেওয়ার ব্যবস্থাও বিসিবি করবে বলে জানিয়েছেন তিনি, ‘যদি থাকে ওই রকম কোনো সমস্যা, তাহলে আমরা অবশ্যই তাকে সেই সহায়তা করব।’

শুধু নারীবিদ্বেষী নয়, তানজিম অন্য একাধিক বিষয়ে বিতর্কিত স্ট্যাটাস দিয়েছেন। জাতীয় সংগীত গাওয়া ও জাতীয় দিবস পালন করা উচিত নয়, এমন পোস্ট দিয়েছেন।

এশিয়া কাপে ইবাদতের বদলি তানজিম | প্রথম আলো

জালাল ইউনুস এ ব্যাপারে বলেছেন, ‘যখন একবার সে বলেছে, পোস্ট নিয়ে সে দুঃখিত, তার মানে সে দুঃখিত। সেটা সে অনুভব করেই বলেছে।’

২০ বছর বয়সী তানজিম বিসিবির বয়সভিত্তিক প্রোগ্রাম থেকে আসা ক্রিকেটার। ২০২০ সালের অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপজয়ী দলের সদস্য ছিলেন এই পেসার। বিসিবির প্রক্রিয়ার মধ্যে থেকেও একজন ক্রিকেটার এমন ভাবনা লালন করছেন, উঠেছে সে প্রশ্নও।

এরপর অন্য ক্রিকেটারদের দেখাশোনা আরও বাড়ানো হবে কি না,

এমন প্রসঙ্গে জালাল ইউনুস বলেন, ‘অবশ্যই, এ জন্যই বলা হচ্ছে আমরা তাকে মনিটর করব। তার কোনো সাহায্য লাগলে আমরা প্রদান করব।

যদি কোনো মনোবিদের…যেহেতু এটা প্রকাশ্যে এসেছে, আশা করি, ভবিষ্যতে এ ধরনের সমস্যা হবে না। তাদেরও আমাদের সঙ্গে চুক্তির ব্যাপার আছে। জাতীয় দলের কোড অব কনডাক্টের ব্যাপার আছে। এ জন্য সে বলেছে, “আমি খুবই সতর্ক থাকব।”’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *