জামালখানে ‘কে বেকারি’র ১৬তম আউটলেট

চট্টগ্রাম নগরীর জামালখান এলাকায় গ্র্যান্ড ওপেনিং এর মাধ্যমে যাত্রা শুরু করেছে খুলশী মার্ট গ্রুপের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান ‘কে বেকারি’র ১৬ তম আউটলেট।

শুক্রবার বিকেলে জামালখান ইকুরিয়ামের বিপরীতে সুপরিসর ও আধুনিক এই আউটলেট উদ্বোধন করেন মার্ট প্রমোটরস লিমিটেডের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ আলী।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক গুলশানা আলী, খুলশী মার্ট মার্ট প্রমোটরস লিমিটেডের নির্বাহী পরিচালক সরফরাজ আলী, জামালখান আউটলেটের ল্যান্ড ওনার মিসেস ফরিদা ইয়াসমিন, মার্ট প্রমোটর্স লিমিটেডের বিজনেজ ডেভলপমেন্ট ম্যানেজার শাখের হোসাইন, কে বেকারির আউটলেট ম্যানেজার ফয়সাল আহমেদ। এছাড়া নগরীর বিভিন্ন পর্যায়ের গুরুত্বপূর্ণ ব্যাক্তিবর্গ এই সময় উপস্থিত ছিলেন।

No description available.

মার্ট প্রমোটরস লিমিটেডের বিজনেজ ডেভলপমেন্ট ম্যানেজার শাখের হোসাইন জানান, প্রিমিয়াম কোয়ালিটি বেকারি পণ্য ও মিষ্টান্নের জন্য সমগ্র চট্টগ্রাম নগরীতে ‘কে বেকারি’ একটি জনপ্রিয় ব্র্যান্ড। কেক, পেস্টি, চিকেন চিজ পাপ, স্পাইসি হটডক, মেরিন স্যান্ডউইচ, বিফ মিটলোপ, চিকেন পিৎজা, কোয়ালিটি প্রিমিয়াম ব্রেড, প্রিমিয়াম বিস্কিটসহ প্রায় ৩শ’ ধরনের বেকারি পণ্য উৎপাদন ও বিপনন করে থাকে ‘কে বেকারি’।

গ্রাহক চাহিদার প্রেক্ষাপটে নগরীতে কে বেকারির আরও আউটলেট চালু করার পরিকল্পনা রয়েছে

এছাড়া প্রিমিয়াম সুইটস আইটেমের মধ্যে জাফরান ভোগ, ইরানি চমচম, স্পেশাল রসমালাই কে বেকারির প্রোডাক্ট তালিকায় রয়েছে বলেও জানান তিনি। বলেন, চট্টগ্রাম নগরীর সব অভিজাত এলাকায় কে বেকারীর আউটলেট আছে। সর্বশেষ জামালখান এলাকায় গ্র্যান্ড ওপেনিং-এর মাধ্যমে যাত্রা শুরু করলো ১৬তম আউটলেট। অব্যাহত গ্রাহক চাহিদার প্রেক্ষাপটে নগরীতে কে বেকারির আরও আউটলেট চালু করার পরিকল্পনা রয়েছে।

নির্বাহী পরিচালক সরফরাজ আলী জানান, কে বেকারি চট্টগ্রামের সুপরিচিত একটি প্রতিষ্ঠান। দীর্ঘ বছর ধরে অত্যন্ত সুনামের সাথে এই বেকারি পরিচালিত হয়ে আসছে।

May be an image of 7 people, people smiling and text

চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ আলী বলেন, সুনামের ধারাবাহিকতাকে পুঁজি করে দেশের সর্বাধুনিক কারখানায় উৎপাদন হয় কে বেকারির খাদ্যপণ্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *