মাহবুবুল আলমকে সংবর্ধনা দিয়েছে চসিক

দেশের ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংঠন এফবিসিসিআই এর সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় মাহবুবুল আলমকে সংবর্ধনা দিয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. রেজাউল করিম চৌধুরী।

রোববার দুপুরে টাইগারপাসস্থ চসিক কার্যালয়ে আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে মেয়র রেজাউল বলেন, চট্টগ্রামের কৃতি সন্তান মাহবুবুল আলম দেশের ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংঠন এফবিসিসিআই এর সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় চট্টগ্রামের মেয়র হিসেবে আমি আনন্দিত। এই প্লাটফর্মকে কাজে লাগিয়ে চট্টগ্রামের উন্নয়নে আরো ভূমিকা রাখবেন এই আমার আশা।

“ চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের হোল্ডিং ট্যাক্স আর কিছু রাজস্ব আয়ের খাত ছাড়া আয়ের বড় কোন উৎস নেই। অথচ এই স্বল্প আয়ে ৭০ লক্ষ মানুষের উন্নয়নের দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে চসিককে। এত রাস্তা করি তাও রাস্তা ভেঙ্গে যায়।

কারণ সাধারণ রাস্তার ধারণ ক্ষমতা ১০ থেকে ১২ টন। অথচ, বন্দরকে কেন্দ্র করে অনেক ট্রাক-লরি নিয়ম ভেঙ্গে চলে ৩০-৪০ টন মাল নিয়ে। ফলে সড়ক করার কিছুদিন পর অতিরিক্ত চাপে সড়ক নষ্ট হয়ে যায়।”

সিটি ডেভেলপমেন্ট চার্জ চালুর দাবি জানিয়ে মেয়র রেজাউল বলেন, আমি বন্দরের আয়ের মাত্র এক শতাংশ সিটি ডেপেলপমেন্ট চার্জ হিসেবে দাবি করেছিলাম। নানা আইনের গ্যাঁড়াকলে তা আটকে যায়।

তখন বাধ্য হয়ে আন্ত:মন্ত্রণালয় বৈঠকে প্রস্তাব করলাম যে কন্টেনারগুলা বন্দরে নামে এবং ট্রাক-লরিগুলো বন্দরের পণ্য পরিবহণ করে সেগুলো থেকে বন্দরের গেটেই সিটি ডেপেলপমেন্ট চার্জ আদায় করা হোক।

প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ২৫০০ কোটি টাকায় ঘুরে দাঁড়াচ্ছে চট্টগ্রাম: মেয়র রেজাউল

রাজস্বের জন্য কেবল জনগণের হোল্ডিং ট্যাক্সের উপর নির্ভর করে বসে থাকলে চট্টগ্রামের অবকাঠামোগত উন্নয়ন ব্যাহত হবে। মনে রাখতে হবে টানেলসহ নতুন প্রকল্পগুলো চালু হলে চট্টগ্রামের সড়কের উপর চাপ আরো বাড়বে।

সংবর্ধিত এফবিসিসিআই এর সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন, চট্টগ্রামের মেয়র মহোদয়ের দাবিগুলো যৌক্তিক এবং চট্টগ্রামের উন্নয়নের স্বার্থেই এ দাবি আদায়ের জন্য কাজ করব। চট্টগ্রামকে এগিয়ে নিতে হলে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের ক্ষমতায়ন করতে হবে।

চসিকের কাজ অন্য সংস্থা করলে তা নগরীতে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করবে। দেশকে ট্রিলিয়ন ডলারের অর্থনীতিতে উন্নীত করতে হলে চট্টগ্রামের যোগাযোগ সক্ষমতা বাড়াতে হবে। ঢাকা- চট্টগ্রামকে উন্নীত করতে হবে ৮ লেনে, চালু করতে হবে চট্টগ্রাম থেকে ব্যাংককসহ বেশ কিছু বাণিজ্যিক নগরীর সরাসরি ফ্লাইট।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে চসিকের প্যানেল মেয়র গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, আফরোজা কালাম, সচিব খালেদ মাহমুদ, ব্যবসায়ী নেতা হোটেল প্যারামাউন্ট ইন্টারন্যাশনালের এমডি সালেহ আহমেদ সুলেমানসহ কাউন্সিলরবৃন্দ এবং চসিকের বিভাগীয় প্রধানবৃন্দ অংশ নেন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মেয়রের একান্ত সচিব আবুল হাশেম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *