প্রায় ৭ লাখ তরুণ উদ্যোক্তাকে অর্থ ও প্রশিক্ষণ দেবে ব্র্যাক-সিলাতাক

গতানুগতিক ব্যাংকিং খাতের সেবা নিতে পারে না, এমন ৬ লাখ ৮৪ হাজার ২১২ জন তরুণ-তরুণীকে আত্মকর্মসংস্থানের মাধ্যমে উদ্যোক্তা হওয়ার প্রশিক্ষণ ও অর্থ যোগানে নতুন একটি প্রকল্প শুরু করতে যাচ্ছে ব্র্যাক এবং কাতারভিত্তিক আন্তর্জাতিক অলাভজনক সংস্থা সিলাতাক।

সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাক এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আনলকিং ফাইন্যান্সিয়াল সলিউশনস ফর ইয়ুথ এন্টারপ্রাইজ ডেভেলপমেন্ট’ শীর্ষক একটি প্রকল্প বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ১৭ সেপ্টেম্বর নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭৮তম অধিবেশনের সাইডলাইনে একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে।

তরুণ-তরুণীরা তাদের উপার্জন সৃষ্টিকারী উদ্যোগ শুরু করতে, টিকে থাকতে বা তাদের উদ্যোগকে আরও বড় পরিসরে নিয়ে যেতে এই প্রকল্পের সহায়তা নিতে পারবে বলে জানিয়েছে ব্র্যাক।

এই প্রকল্প ৩ বছর নানা ধরনের আর্থিক সহায়তা প্রদান করবে উল্লেখ করে ব্র্যাক জানিয়েছে, একইসঙ্গে তরুণ উদ্যোক্তাদের সামর্থ্য বৃদ্ধি ও অর্থনৈতিক সাক্ষরতার উন্নয়ন এবং তাদের উদ্যোগের স্থায়িত্ব বাড়াতে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থাও থাকবে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ব্র্যাক আরও জানায়, আনুষ্ঠানিক আর্থিক খাতের সেবা নিতে গিয়ে বাংলাদেশে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পগুলো অনেক সময় বড় চ্যালেঞ্জের মুখে পড়ে। বিশ্ব ব্যাংকের হিসেবে এখানে চাহিদার তুলনায় অর্থের যোগান ২ দশমিক ৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার কম। নারী উদ্যোক্তা পরিচালিত ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোগগুলো সবচেয়ে বেশি এই সমস্যার মুখোমুখি হয়। কারণ প্রায় ৬০ ভাগ নারী উদ্যোক্তারই ব্যাংক বা অন্য আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে দেওয়ার মতো কোনো জামানত থাকে না।

করোনাভাইরাস মহামারি এই চ্যালেঞ্জকে আরও বাড়িয়ে তুলেছে। এই সময়ে অনেকের আয় কমে গেছে, অনেকে হারিয়েছে চাকরি। এসব কারণে তরুণদের আর্থিক সামর্থ্য আরও কমে গেছে।

এমন প্রেক্ষাপটে একসঙ্গে কাজ করার জন্য বিশ্বের বৃহত্তম উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাকের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর করেছে কাতারভিত্তিক আন্তর্জাতিক অলাভজনক সংস্থা সিলাতাক। চুক্তি স্বাক্ষরের পরে নতুন এই উদ্যোগ নিয়ে কথা বলেছেন দুই সংস্থার শীর্ষ ব্যক্তিরা।

সিলাতাক-এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হাসান আল মুল্লা বলেন, ‘আর্থিক অন্তর্ভুক্তি এবং ক্ষমতায়নে বাংলাদেশের তরুণদের অর্থ উপার্জনে সহায়তার মাধ্যমে এই প্রকল্পটি তাদের জীবিকার উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে। তরুণদের উদ্যোগে সেখানে আরও কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে, যা দেশটির টেকসই অর্থনৈতিক উন্নয়নকে বেগবান করবে।’

‘বাংলাদেশে বিপুলসংখ্যক তরুণ জনগোষ্ঠী থাকলেও সুযোগ অনেক কম। কারণ এটি পৃথিবীর সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ দেশ। আর্থিক খাতে প্রবেশাধিকারের অভাবে থাকা তরুণদের বিড়ম্বনা কমাতে বিশ্বের সবচেয়ে বড় উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাকের সঙ্গে এই যৌথযাত্রায় আমরা আনন্দিত,’ বলেন হাসান আল মুল্লা।

ব্র্যাকের নির্বাহী পরিচালক আসিফ সালেহ্ বলেন, ‘অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জনে ব্র্যাক তারুণ্যের শক্তিতে বিশ্বাস করে। প্রান্তিক পর্যায়ের তরুণ উদ্যোক্তাদের দক্ষতা উন্নয়ন ও আর্থিক সক্ষমতাকে ক্ষুদ্রঋণের সঙ্গে মিলিয়ে আমরা একইসঙ্গে এটাকে ছড়িয়ে দিতে চাচ্ছি। আমাদের গ্রাহককেন্দ্রিক দৃষ্টিভঙ্গি যথাযথ আর্থিক সেবা নিশ্চিত করবে।’

‘সেইসঙ্গে তরুণ উদ্যোক্তাদের ব্যবসায়িক প্রবৃদ্ধিকে ত্বরান্বিত করবে মেন্টরশিপ, যা তাদের সক্ষমতা তৈরিতে ভূমিকা রাখবে। বাংলাদেশের তরুণ উদ্যোক্তাদের সহায়তা দিতে সিলাতাকের সঙ্গে এই উদ্ভাবনী মডেল পরীক্ষা-নিরীক্ষায় অংশীদারত্ব গড়ে তুলতে পেরে আমরা উদ্দীপ্ত। এটি কেবল আরও কার্যকরী সেবা উদ্ভাবনে আমাদের সহায়তাই করবে না, বরং ঝুঁকির মাত্রা নিরূপণ এবং উত্তরণেও সহায়তা করবে,’ বলেন আসিফ সালেহ্।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *