মূল্যস্ফীতি অসহনীয় পর্যায়ে, উদ্বেগ ২৪ বিশিষ্টজনের

প্রায় এক বছর ধরে খাদ্যপণ্যসহ সার্বিক মূল্যস্ফীতি ‘অসহনীয় পর্যায়ে’ উপনীত হয়েছে উল্লেখ করে এ বিষয়ে উদ্বেগ জানিয়েছেন দেশের ২৪ বিশিষ্ট নাগরিক।

সোমবার সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক সালেহ আহমেদের পাঠানো এক যৌথ বিবৃতিতে তারা এ বিষয়ে সরকারকে কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়ার কথা বলেন।

বিবৃতিতে তারা বলেন,

‘আমরা গভীর উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করছি যে, গত প্রায় এক বছর ধরে খাদ্যপণ্যসহ সার্বিক মুদ্রাস্ফীতি অসহনীয় পর্যায়ে উপনীত হয়েছে। সরকারি সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান বিএসএসের তথ্য অনুযায়ী আগস্ট মাসে খাদ্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি ১২ দশমিক ৫৪ শতাংশ ও সার্বিক মূল্যস্ফীতি ৯ দশমিক ৯ শতাংশ।

এ পরিস্থিতিতে নিম্নবিত্ত ও মধ্যবিত্তদের পক্ষে জীবনধারণ কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। বিশেষ করে ডিম ও মাংসের মূল্যবৃদ্ধির ফলে আমিষ জাতীয় খাদ্যাভাব পুষ্টির ক্ষেত্রে দীর্ঘমেয়াদী সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে।’

‘সরকারি ভাষ্য অনুযায়ী, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ এ পরিস্থিতির জন্য দায়ী এবং ব্যবসায়ীদের মতে ডলার সংকটের ফলে সমস্যা ঘনীভূত হয়েছে। বহুদেশে যুদ্ধের কারণে সমস্যা সৃষ্টি হয়েছিল এবং অধিকাংশ দেশ তা সত্ত্বেও মুদ্রানীতি, ব্যয় সংকোচন ও বাজার ব্যাবস্থায় কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করে মূল্যস্ফীতি সহনীয় পর্যায়ে নামিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে।’

শান্তির বার্তা নেই বাজারে | অর্থ-বাণিজ্য | Naya Shatabdi - বাংলাদেশের প্রথম  ডিজিটাল পত্রিকা

বিশিষ্ট নাগরিকরা বিবৃতিতে বলেন, ‘আমরা লক্ষ্য করছি যে, বাংলাদেশ অদ্যাবধি মূল্যস্ফীতি কমাতে সক্ষম হয়নি। বস্তুতপক্ষে উৎপাদন ও বাজার ব্যবস্থাপনায় সরকার কার্যকর ব্যবস্থাপনায় সমর্থ হচ্ছে না।

অভিযোগ রয়েছে যে, উৎপাদন, পাইকারি ও খুচরা বাজারে সিন্ডিকেট গড়ে উঠেছে এবং তারাই বাজারমূল্য নিয়ন্ত্রণ করছে। সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ, এমনকি গৃহীত পদক্ষেপও বাস্তবায়নে সমর্থ হচ্ছে না।’

এ পরিস্থিতি কোনো অবস্থায় কাম্য নয় উল্লেখ করে তারা বলেন, ‘আমরা একান্তভাবে প্রত্যাশা করি, সরকার প্রয়োজনে সামাজিক শক্তির সহায়তায় এই দুর্বিসহ পরিস্থিতি উত্তরণে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করে বিশেষ করে মাংস, ডাল, পেঁয়াজ, ডিম, আলুসহ পণ্যমূল্য সহনীয় পর্যায়ে নামিয়ে আনবে। জনদুর্ভোগ নিরসনে কার্যকর পদক্ষেপ নেবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *