স্তন ক্যান্সার সচেতনতায় ব্র্যাক ব্যাংক ও ব্যানক্যাট-এর অনন্য আয়োজন

স্তন ক্যান্সারের মতো জীবননাশী রোগ সম্পর্কে নারীদের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে বাংলাদেশ ক্যান্সার এইড ট্রাস্ট – ব্যানক্যাট (BANCAT) এবং ল্যাবএইড ক্যান্সার হসপিটালের সহযোগিতায় ‘স্তন ক্যান্সার সচেতনতা কর্মসূচি’র আয়োজন করেছে ব্র্যাক ব্যাংক।

১৪ অক্টোবর ২০২৩ ঢাকার লেকশোর হোটেলে “লিভিং বিয়ন্ড ব্রেস্ট ক্যান্সার” স্লোগানকে সামনে রেখে আয়োজিত এই কর্মসূচিতে ব্র্যাক ব্যাংকের নারী গ্রাহকসহ সমাজের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার প্রায় ১৩০ জন নারী অংশগ্রহণ করেন।

এই কর্মশালার অংশ হিসেবে অনুষ্ঠানস্থলে একটি ‘ফ্রি ব্রেস্ট ক্যান্সার স্ক্রিনিং’ সেশনের ব্যবস্থা রাখা হয়। এছাড়াও ল্যাবএইড ক্যান্সার হসপিটাল অ্যান্ড সুপার স্পেশালিটি সেন্টারের অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর অ্যান্ড অনকোপ্লাস্টিক ব্রেস্ট সার্জন ডা. আলী নাফিসা স্তন ক্যান্সারের লক্ষণ, রোগ নির্ণয়, প্রতিরোধ, চিকিৎসা এবং সচেতনতামূলক টিপস নিয়ে একটি সেশন পরিচালনা করেন।

ব্র্যাক ব্যাংকের হেড অব হিউম্যান রিসোর্সেস আখতারউদ্দিন মাহমুদ, চিফ মার্কেটিং অফিসার ইন্দ্রনীল চট্টোপাধ্যায়, হেড অব উইমেন ব্যাংকিং মেহরুবা রেজা এবং বাংলাদেশ ক্যান্সার এইড ট্রাস্ট (BANCAT)-এর ফাউন্ডার অ্যান্ড এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর নাজমুস আহমেদ আলবাব, জেনারেল সেক্রেটারি ডা. মাহজাবিন ফেরদৌস, ভাইস প্রেসিডেন্ট নেহাল আহমেদ, ভাইস প্রেসিডেন্ট (ফাইন্যান্স) আলমজেব ফারজাদ আহমেদসহ উভয় প্রতিষ্ঠানের অন্যান্য কর্মকর্তারাও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

দেশে আপামর জনগোষ্ঠীর মধ্যে ক্যান্সার নিয়ে সচেতনতা সৃষ্টিতে অবদান রাখার স্বীকৃতিস্বরূপ তিনজন নারী ক্যান্সার অ্যাওয়ারনেস অ্যাক্টিভিস্টকে পুরস্কার প্রদান করা হয়। পুরস্কারপ্রাপ্তরা হলেন বাংলাদেশ ক্যান্সার এইড ট্রাস্ট (BANCAT)- এর প্রতিষ্ঠাকালীন সভাপতি প্রয়াত রোকিয়া আফজাল রহমান, বাংলাদেশ মহিলা সমিতির সভাপতি সিতারা আহসানউল্লাহ এবং উদ্যোক্তা ও উন্নয়নকর্মী সাবিনা ইয়াসমিন মাধবী।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ প্যালিয়েটিভ অ্যান্ড সাপোর্টিভ কেয়ার ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারপারসন ডা. রুমানা দৌলা, সাবিনা ইয়াসমিন মাধবী ও সিতারা আহসানউল্লাহর অংশগ্রহণ এবং নাজমুস আহমেদ আলবাবের পরিচালনায় একটি প্যানেল আলোচনার আয়োজন করা হয়। প্যানেলিস্টরা স্তন ক্যান্সারের হার কমানোর লক্ষ্যে স্তন ক্যান্সার বিষয়ে সমাজে বিরাজমান গোপনীয়তার পরিবর্তে খোলাখুলি আলোচনার ব্যাপারে সবাইকে উৎসাহিত করেন এবং পাশাপাশি এই ক্যান্সার প্রাথমিক পর্যায়ে থাকা অবস্থায় শনাক্তকরণের প্রয়োজনীয়তার ওপরও গুরুত্বারোপ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *