বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে বিনিয়োগকারীদের প্রত্যশা পূরণে ব্যর্থ ৭ কোম্পানি

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের ২৩টি কোম্পানির মধ্য এই পর্যন্ত ১২টি কোম্পানি ৩০ জুন, ২০২৩ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। যার মধ্যে ডিভিডেন্ড কমেছে ৭টি কোম্পানির, বেড়েছে একটির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪টির।

যেসব কোম্পানির ডিভিডেন্ড কমেছে, সেগুলো হলো- বারাকা পাওয়ার, বারাকা পতেঙ্গা পাওয়ার, ডরিন পাওয়ার, জিবিবি পাওয়ার, শাহজীবাজার পাওয়ার, তিতাস গ্যাস এবং ইউনাইটেড পাওয়ার লিমিটেড।

বারাকা পাওয়ার
৩০ জুন, ২০২৩ সমাপ্ত অর্থববছরে কোম্পানিটি সাধারণ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ৫ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। আগের বছর দিয়েছিল ১০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড। অর্থাৎ আগের বছরের তুলনায় কোম্পানিটির ডিভিডেন্ড কমেছে ৫ শতাংশ। সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির সমন্বিত শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৫৬ পয়সা। আগের বছর ইপিএস হয়েছিল ২ টাকা ১৩ পয়সা।

আগামী ২৪ ডিসেম্বর ডিজিটাল প্ল্যাটফরমের মাধ্যমে কোম্পানিটির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। এর জন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ২০ নভেম্বর।

বারাকা পতেঙ্গা পাওয়ার
৩০ জুন, ২০২৩ সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটি সাধারণ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ৫ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। আগের বছর দিয়েছিল ১০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড। অর্থাৎ আগের বছরের তুলনায় কোম্পানিটির ডিভিডেন্ড কমেছে ৫ শতাংশ। সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি ১ টাকা ৬ পয়সা লোকসান দিয়েছে। আগের বছর শেয়ার প্রতি ১ টাকা ২৪ পয়সা আয় করেছিল। ৩০ জুন, ২০২৩ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয়েছে ২৬ টাকা ৮১ পয়সা।

আগামী ২৪ ডিসেম্বর ডিজিটাল প্ল্যাটফরমের মাধ্যমে কোম্পানিটির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। এর জন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ২০ নভেম্বর।

ডরিন পাওয়ার
কোম্পানিটি ৩০ জুন, ২০২৩ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য ১১ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। আগের বছর ১৮ শতাংশ ক্যাশ ও ১২ শতাংশ স্টকসহ মোট ৩০ শতাংশ ডিভিডেন্ড দিয়েছিল। অর্থাৎ আগের বছরের তুলনায় কোম্পানিটির ডিভিডেন্ড কমেছে ১৯ শতাংশ। সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩ টাকা ৫৬ পয়সা। যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ৯ টাকা ২১ পয়সা। আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি সম্পদ মূল্য হয়েছে ৫০ টাকা ৪৭ পয়সা।

আগামী ০৭ ডিসেম্বর ২০২৩ কোম্পানিটির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। এর জন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ০৯ নভেম্বর।

জিবিবি পাওয়ার
৩০ জুন, ২০২৩ সমাপ্ত অর্থবছরে সাধারণ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ২ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। আগের বছর ৩ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড দিয়েছিল। অর্থাৎ আগের বছরের তুলনায় কোম্পানিটির ডিভিডেন্ড কমেছে ১ শতাংশ। সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে এক টাকা ১০ পয়সা। যা আগের বছর একই সময়ে ছিল এক টাকা ১ পয়সা।

আগামী ২৬ ডিসেম্বর কোম্পানিটির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। এর জন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ৩০ নভেম্বর।

শাহজীবাজার পাওয়ার
৩০ জুন, ২০২৩ সমাপ্ত অর্থবছরে সাধারণ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ১১ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। আগের বছর ১৬ শতাংশ ক্যাশ ও ৪ শতাংশ স্টকসহ মোট ২০ শতাংশ ডিভিডেন্ড দিয়েছিল। অর্থাৎ আগের বছরের তুলনায় কোম্পানিটির ডিভিডেন্ড কমেছে ১৯ শতাংশ। সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে এক টাকা ১ টাকা ৫২ পয়সা। যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ৪ টাকা ১৪ পয়সা।

আগামী ৯ জানুয়ারি বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) করবে কোম্পানিটি। এর জন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ৩ ডিসেম্বর।

তিতাস গ্যাস
৩০ জুন, ২০২৩ সমাপ্ত অর্থববছরে কোম্পানিটি শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ৫ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। আগের বছর ১০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড দিয়েছিল। অর্থাৎ আগের বছরের তুলনায় কোম্পানিটির ডিভিডেন্ড কমেছে ৫ শতাংশ। সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ১ টাকা ৬৭ পয়সা। আগের অর্থবছরে শেয়ার প্রতি ৩ টাকা ২১ পয়সা আয় ছিল। ৩০ জুন, ২০২৩ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৭১ টাকা ৭৫ পয়সা।

আগামী ২০ ডিসেম্বর, ২০২৩ তারিখে কোম্পানির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। এর জন্য রেকর্ড তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ১৫ নভেম্বর, ২০২৩।

ইউনাইটেড পাওয়ার
৩০ জুন, ২০২৩ সমাপ্ত অর্থবছরে সাধারণ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ৮০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। আগের বছর ১৭০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড দিয়েছিল। অর্থাৎ আগের বছরের তুলনায় কোম্পানিটির ডিভিডেন্ড কমেছে ৯০ শতাংশ। সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১৩ টাকা ৮৩ পয়সা। যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ১৭ টাকা ২১ পয়সা। ৩০ জুন ২০২৩ শেষে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ৫৩ টাকা ২২ পয়সা।

আগামী ১৪ ডিসেম্বর বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) করবে কোম্পানিটি। এর জন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ১৬ নভেম্বর।

ডিভিডেন্ড বেড়েছে সিভিও পেট্রো কেমিক্যাল
কোম্পানিটি ৩০ জুন, ২০২৩ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য ৫ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। এই ডিভিডেন্ড কেবল সাধারণ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য। উদ্যোক্তা পরিচালকরা ডিভিডেন্ড নিবেন না। আগের বছর কোম্পানিটি কোনো ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেনি। সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪৬ পয়সা। আগের অর্থবছরে শেয়ারপ্রতি লোকসান ছিল ২ টাকা ৬৩ পয়সা। ৩০ জুন, ২০২৩ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সমন্বিত নিট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয়েছে ৮ টাকা ৩৭ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে যা ছিল ৭ টাকা ৭৪ পয়সা।

আগামী ২৬ ডিসেম্বর কোম্পানিটির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। এর জন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ২৩ নভেম্বর।

চার কোম্পানির ডিভিডেন্ডঅপরিবর্তিত রয়েছে

ঢাকা ইলেক্ট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি-(ডেসকো)
কোম্পানিটি ৩০ জুন, ২০২৩ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য ১০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। আগের বছরও কোম্পানিটি ১০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড দিয়েছিল। অর্থাৎ ডিভিডেন্ড অপরিবর্তিত রয়েছে। এই ডিভিডেন্ড শুধুমাত্র সাধারণ বিনিয়োগকারীদের জন্য ঘোষণা করা হয়েছে। সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ১৩ টাকা ৬১ পয়সা। আগের বছর শেয়ার ইপিএস ছিল ১ টাকা ৫৯ পয়সা। ৩০ জুন, ২০২৩ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৫০ টাকা ৬২ পয়সা।

কোম্পানিটির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) আগামী ১০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ অনুষ্ঠিত হবে। এর জন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ২৩ নভেম্বর ২০২৩।

এমজেএল বাংলাদেশ
কোম্পানিটি ৩০ জুন, ২০২৩ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য ৫০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। আগের বছরও ৫০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড দিয়েছিল। অর্থাৎ কোম্পানিটির ডিভিডেন্ড অপরিবর্তিত রয়েছে। সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৮ টাকা ৭৩ পয়সা। আগের অর্থবছরে ইপিএস হয়েছিল ৬ টাকা ৩৬ পয়সা। ৩০ জুন, ২০২৩ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সমন্বিত নিট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয়েছে ৪৪ টাকা ২৭ পয়সা।

আগামী ২০ ডিসেম্বর কোম্পানিটির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। এর জন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ১৬ নভেম্বর।

ইন্ট্রাকো রিফুয়েলিং স্টেশন
কোম্পানিটি ৩০ জুন, ২০২৩ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য ১০ শতাংশ ক্যাশ ডভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। আগের বছরও ১০ শতাংশ ডিভিডেন্ড দিয়েছিল। অর্থাৎ কোম্পানিটির ডিভিডেন্ড অপরিবর্তিত রয়েছে। সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে এক টাকা ৩০ পয়সা। আগের অর্থবছরে ইপিএস হয়েছিল এক টাকা ৩ পয়সা। ৩০ জুন, ২০২৩ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয়েছে ১২ টাকা ৪৬ পয়সা।

আগামী ১২ ডিসেম্বর কোম্পানিটির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। এর জন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ১৬ নভেম্বর।

খুলনা পাওয়ার
৩০ জুন ২০২৩ সমাপ্ত অর্থবছরের কোম্পানিটি শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ১০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। আগের বছরও ১০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড দিয়েছিল। অর্থাৎ কোম্পানিটির ডিভিডেন্ড অপরিবর্তিত রয়েছে।

কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ১ টাকা ৬৭ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ছিল ০৩ পয়সা। ৩০ জুন ২০২৩ শেষে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ১৯ টাকা ১৯ পয়সা।

আগামী ২৮ ডিসেম্বর বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) করবে কোম্পানিটি। এর জন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ২০ নভেম্বর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *