সয়াবিনের চাপে পাম অয়েলের ব্যাপক দরপতন

মালয়েশিয়ার পাম অয়েলের সরবরাহ মূল্য নিম্নমুখী প্রবণতায় রয়েছে। শুক্রবার (২২ সেপ্টেম্বর) ভোজ্যতেলটির দাম গত ৩ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন স্তরে অবস্থান করছে। সবমিলিয়ে টানা ৩ সপ্তাহ নিত্যপণ্যটির দর কমেছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের বরাত দিয়ে বিজনেস রেকর্ডারের এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানা গেছে। এতে বলা হয়, আন্তর্জাতিক বাজারে সয়াবিন, সূর্যমুখী ও ক্যানোলা তেলের দরপতন ঘটেছে। প্রতিদ্বন্দ্বী ভোজ্যতেলগুলোর দর কমার চাপে পাম অয়েলেরও দাম কমেছে।

এছাড়া সরবরাহ বৃদ্ধির প্রবল সম্ভাবনা জেগেছে। খাবার তেলটির দর হারানোর অন্যতম কারণ এটিও।

আলোচ্য কার্যদিবসে বুরসা মালয়েশিয়া ডেরিভেটিভস এক্সচেঞ্জে আগামী ডিসেম্বরের বেঞ্চমার্ক পাম অয়েলের সরবরাহ চুক্তি মূল্য স্থিতিশীল রয়েছে। প্রতি মেট্রিক টনের দর স্থির হয়েছে ৩৬৮১ রিঙ্গিত বা ৭৮৫ ডলার ৭০ সেন্টে।

গত ৩ মাসের মধ্যে যা প্রায় সবচেয়ে কম। সবমিলিয়ে চলতি সপ্তাহে পাম অয়েল দর হারিয়েছে ২ দশমিক ৮ শতাংশ।

কুয়ালালামপুর ভিত্তিক ব্যবসা ও পরামর্শক কোম্পানি দ্য ফার্ম ট্রেডের পরিচালক সন্দ্বীপ সিং বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে সয়াবিনের মাড়াই বেড়েছে। সেই সঙ্গে অর্থনীতি নিয়ে উদ্বেগ সৃষ্টি হয়েছে। ফলে ভোজ্যতেলটির দাম কমেছে।

তিনি আরও বলেন, মালয়েশিয়ায় মজুত বৃদ্ধি পেয়েছে। ভোজ্যতেলের দরে যা প্রভাব ফেলেছে। এতে চাপে পড়েছে পাম অয়েল।

সাপ্তাহিক ভিত্তিতেও সয়াবিন তেলের দরপতন ঘটেছে। দক্ষিণ আমেরিকায় ব্যাপক সরবরাহ বেড়েছে। ফলে এই নিম্নমুখিতা তৈরি হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *