দরিদ্রদের জীবনমান উন্নয়নে একসঙ্গে কাজ করবে চীন-ইউএনডিপি

জীবিকার সুযোগ বাড়িয়ে অর্থনৈতিক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় দরিদ্রদের জীবনমান উন্নয়নে একসঙ্গে কাজ করবে জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচি (ইউএনডিপি) ও চীন।

সোমবার (১৩ নভেম্বর) চীনা বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় বনানীর কড়াইল বেদে বস্তিতে সেলাই মেশিন হস্তান্তর অনুষ্ঠানে এ আশাবাদ ব্যক্ত করে দুই পক্ষ। অনুষ্ঠানে ১৪২৫টি অটোমেটিক সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়।

এই উদ্যোগটি এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে ব্যক্তিগত সুরক্ষামূলক সরঞ্জাম (পিপিই) সম্পর্কিত উৎপাদন সক্ষমতা জোরদার করার বিষয়ে চীন-ইউএনডিপি সাউথ-সাউথ ও ত্রিপক্ষীয় সহযোগিতা প্রকল্পের অন্তর্ভুক্ত।

সেলাই মেশিন বিতরণকালে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম, বাংলাদেশে চীনের রাষ্ট্রদূত এইচ ই ইয়াও ওয়েন এবং বাংলাদেশে নিযুক্ত ইউএনডিপি’র আবাসিক প্রতিনিধি স্টেফান লিলার।

পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর নারীদের ক্ষমতায়নে চীন-ইউএনডিপির এই সহযোগিতামূলক সম্পর্কের ইতিবাচক প্রভাব প্রত্যক্ষ করতে পেরে আমি অত্যন্ত আনন্দিত। অটোমেটিক সেলাই মেশিনের বিতরণ অর্থনৈতিক স্থিতিস্থাপকতা সৃষ্টিতে এবং টেকসই উন্নয়নকে এগিয়ে নিতে আমাদের যৌথ অঙ্গীকারের একটি নিদর্শন। যা টেকসই পরিবর্তনের পেছনে আন্তর্জাতিক সহযোগিতার গুরুত্বকে আরও একবার জানান দেয়।

চীনের রাষ্ট্রদূত ইয়াও ওয়েন 

বাংলাদেশে নিযুক্ত ইউএনডিপির আবাসিক প্রতিনিধি স্টেফান লিলার বলেন, ইউএনডিপির বৈশ্বিক উদ্যোগসমূহকে সফল করার ক্ষেত্রে অনেকদিন ধরেই চীন আমাদের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার। আমাদের শীর্ষ ২০টি সহায়তাকারী দেশের মধ্যে চীন অন্যতম। চীনসহ অপরাপর সহায়তা প্রদানকারী দেশগুলোর সমর্থনেই আমরা বিশ্বব্যাপী ১৭০টি দেশে আমাদের কার্যক্রমকে এগিয়ে নিচ্ছি। আমরা চীনের এই সমর্থনকে সাধুবাদ জানাই। শুধুমাত্র চীনের ভূখণ্ডেই নয়, বরং সাউথ-সাউথ সহযোগিতা বিনিময় প্রকল্পের আওতায়ও আমরা চীনের সহযোগিতায় বিভিন্ন দেশে, অর্থনৈতিক ক্ষমতায়ন এবং দক্ষতা উন্নয়নের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় দক্ষতা প্রশিক্ষণ ও নগদ অর্থ প্রদানের মত কাজ করছি। ঠিক যেমনটা আজ আমরা এই কড়াইল বস্তিতে নারীদের মধ্যে অটোমেটিক সেলাই মেশিন বিতরণ করলাম। আমরা চীনের এই অব্যাহত সহযোগিতার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করতে চাই।

চীন থেকে প্রাপ্ত মোট ১৪২৫টি অটোমেটিক সেলাই মেশিন ১২৪৫ জন ব্যক্তি এবং ছয়টি সমবায়ের কাছে হস্তান্তর করেছে ইউএনডিপি। এই মেশিনগুলো বিতরণের উদ্দেশ্য হল, সেলাইয়ের কাজে নিজেদের দক্ষতা বাড়ানোর প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে নারীরা যেন উদ্যোক্তা হওয়ার স্বপ্ন দেখতে পারে এবং তৈরি পোশাক খাতের কর্মী হিসেবে নিজেদের প্রস্তুত করতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *