সব খাতে বিক্রির চাপ

দেশের পুঁজিবাজারে সূচকের বড় পতনের মধ্য দিয়ে গতকাল সোমবারের লেনদেন শেষ হয়েছে। সেই সঙ্গে আগের দিনের তুলনায় টাকার অঙ্কে লেনদেন আরও কমেছে। এদিন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেনে অংশ নেয়া বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিটদর অপরিবর্তিত ছিল। গতকাল সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবসে সূচক পতনে বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ কম থাকায় কোনো খাতের শেয়ারদর বাড়েনি। এছাড়া এদিন দুই খাত ছাড়া বাকি সব খাতের শেয়ারদর কমেছে। এদিন শেয়ার বিক্রির চাপ বেশি ছিল ভ্রমণ ও অবকাশ খাতে।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, গতকাল টেলিকমিউনিকেশন এবং মিউচুয়াল ফান্ড খাতে শেয়ারদর বৃদ্ধির বা কমার কোনো পরিবর্তন হয়নি। এছাড়া বাকি সব খাতের শেয়ারদর কমেছে।

এদিকে গতকাল বিনিয়োগকারীদের বিক্রির চাপ থাকায় ভ্রমণ খাতের শেয়ারদর সবচেয়ে বেশি কমেছে। খাতটিতে শেয়ারদর কমেছে ৬ দশমিক ২০ শতাংশ। পরের স্থানে থাকা আইটি খাতে শেয়ারদর কমেছে ২ দশমিক ৩০ শতাংশ। ২ দশমিক ৩০ শতাংশ শেয়ারদর কমে তৃতীয় স্থানে ছিল কাগজ ও মুদ্রণ খাত।

অন্যদিকে গতকাল লেনদেনের দিক থেকে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে খাদ্য ও আনুষঙ্গিক খাতে। খাতটিতে ডিএসইর মোট লেনদেনের ১৮ দশমিক ৫০ শতাংশ লেনদেন হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা সাধারণ বিমা খাতে ডিএসইর মোট লেনদেনের ১০ দশমিক ৩০ শতাংশ লেনদেন হয়েছে। তৃতীয় স্থানে থাকা ওষুধ ও রসায়ন খাতে ডিএসইর মোট লেনদেনের ৯ দশমিক ৮০ শতাংশ লেনদেন হয়েছে। ৭ দশমিক ৫০ শতাংশ লেনদেন হওয়া জীবন বিমা খাত রয়েছে চতুর্থ স্থানে।

ডিএসইর তথ্যমতে, বাজারে ৩৯০টি প্রতিষ্ঠানের মোট আট কোটি ৬১ লাখ ৯২ হাজার ৪০৯ শেয়ার ও ইউনিট কেনা-বেচা হয়েছে। এতে লেনদেন হয়েছে ৪১৩ কোটি ৭৫ লাখ ৯০ হাজার টাকা। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৪২৫ কোটি ৫১ লাখ ৩০ হাজার টাকা। অর্থাৎ আগের দিনের চেয়ে লেনদেন কমেছে। এদিন দাম বেড়েছে মাত্র ১৯টি কোম্পানির শেয়ারের, বিপরীতে কমেছে ১৪৮টির, আর অপরিবর্তিত রয়েছে ২২৩টির।

ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের চেয়ে ৩০ দশমিক ৬৬ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ২৫৭ পয়েন্টে। ডিএসইর অন্য দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ সূচক ৬ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৩৫৭ পয়েন্টে। ডিএস-৩০ সূচক ১৩ দশমিক ৯৯ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ১২৪ পয়েন্টে।

ডিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে ছিল ফু-ওয়াং ফুডের শেয়ার। দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল রূপালী লাইফের শেয়ার। তৃতীয় অবস্থানে ছিল সোনালী পেপারের শেয়ার। এর পরের তালিকায় যথাক্রমে ছিলÑলাফার্জহোলসিম, স্কয়ার ফার্মা, খান ব্রাদার্স পিপি ওভেন ব্যাগ, আলিফ ইন্ডাস্ট্রিজ, রূপালী লাইফ ইন্স্যুরেন্স, এমারেল্ড অয়েল এবং লিগেসি ফুটওয়্যার লিমিটেডের শেয়ার।

অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) প্রধান সূচক ৬৬ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৮ হাজার ৫০২ পয়েন্টে। এদিন সিএসইতে ১৫১টি কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দাম বেড়েছে ১৭টির, কমেছে ৮০টির ও অপরিবর্তিত রয়েছে ৫৪টির দাম।

দিন শেষে সিএসইতে ১২ কোটি ২৯ লাখ ৯৯ হাজার টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এর আগের দিন লেনদেন হয়েছিল চার কোটি এক লাখ ৮০ হাজার টাকার শেয়ার ও ইউনিট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *